কাতার বিশ্বকাপের জন্য শক্তিশালী ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াড

অ্যাডেনোর লিওনার্দো বাচ্চি নামেও পরিচিত একজন ব্রাজিলের ম্যানেজার যিনি সম্প্রতি তার কাতার ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ এর জন্য ২৪ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছেন। এবারের বাছাইপর্ব দারুণভাবে শুরু করার আশা করছে ব্রাজিল জাতীয় দল।

কোপা আমেরিকা ২০২১-এ খুব হতাশ হওয়ার পর তারা ফিফা বিশ্বকাপে আরও ভালো পারফর্ম করবে। কোপা আমেরিকার ফাইনালে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে হেরে নিজেদের সেরা প্রমাণ করার সুযোগ হাতছাড়া করেছে ব্রাজিল। তবে আমরা অস্বীকার করতে পারি না যে ব্রাজিল একটি দুর্দান্ত দল নয় এবং সেরা খেলোয়াড় রয়েছে।

পেলে ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল করে ব্রাজিলের সর্বকালের রেকর্ড গোলদাতা। ব্রাজিলের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় রোনালদো ৯৮টি খেলায় ৬২ গোল করে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন।

আজকে আমরা আলোচনা করব, কাতার বিশ্বকাপের জন্য শক্তিশালী ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা সম্পর্কে।

কাতার বিশ্বকাপের জন্য শক্তিশালী ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াড (1)

২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপে সম্ভাব্য অধিনায়ক নেইমার হতে পারেন। কারণ তিনি বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবল খেলোয়াড় এবং ব্রাজিল ফিফা বিশ্বকাপে তার সেরা খেলোয়াড় অ্যালিসন, এডারসন, নেইমার, ফ্যাবিনহো, ইত্যাদি নিয়ে যাবে।

ব্রাজিল ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ স্কোয়াড সম্ভাব্য লাইন আপ (৪-৩-৩)।  অ্যালিসন, দানিলো, মিলিতাও, মারকুইনহোস, অ্যালেক্স স্যান্ড্রো, আর্থার, কাসেমিরো, লুকাস পাকেটা, কৌতিনহো, রিচার্লিসন, নেইমার। ব্রাজিল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুটবল দেশগুলির মধ্যে একটি, এবং এর ভক্তরা তাদের উত্সাহ এবং আবেগের জন্য পরিচিত। ব্রাজিলের জাতীয় দল বর্তমানে রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করছে।

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াড

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াড বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত দলগুলোর একটি। এই দলে অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় রয়েছে এবং তারা বিশ্বকাপে কীভাবে পারফর্ম করবে তা দেখার জন্য সবাই অপেক্ষা করছে।
নেইমার ব্রাজিলের ফুটবল দলের সেরা খেলোয়াড় এবং আধুনিক যুগের অন্যতম সেরা আক্রমণকারী হিসেবে ইতিহাসে নামবেন। থিয়াগো সিলভা ব্রাজিল ফুটবল দলের অধিনায়ক।

এখানে ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াডের সমস্ত খেলোয়াড়দের একটি তালিকা রয়েছেঃ 

গোলরক্ষকঃ  অ্যালিসন (লিভারপুল), ওয়েভারটন (পালমেইরাস), এডারসন (ম্যানচেস্টার সিটি)।
ডিফেন্ডারঃ দানি আলভেস, থিয়াগো সিলভা, মারকুইনহোস, দানিলো, অ্যালেক্স স্যান্ড্রো, এডার মিলিতাও, রেনান লোদি, ফেলিপে।
মিডফিল্ডারঃ ফিলিপে কৌতিনহো, কাসেমিরো, ফ্যাবিনহো, এভারটন রিবেইরো, ব্রুনো গুইমারেস।
ফরোয়ার্ডঃ নেইমার, রবার্তো ফিরমিনো, গ্যাব্রিয়েল জেসুস, রিচার্লিসন, এভারটন, গ্যাব্রিয়েল বারবোসা, ব্রুনো হেনরিক।
ক্যাপ্টেনঃ ক্যাসেমিরো।

কাতার বিশ্বকাপের জন্য ব্রাজিলের পরিকল্পনা

১. স্কোয়াডঃ ব্রাজিল এই বছর বিশ্বকাপ জিততে ফেবারিট এবং সেখানে অনেক খেলোয়াড়ের জন্য সতর্ক থাকতে হবে। নেইমার হল দলের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নাম, তার ড্রিবলিং এবং শ্যুটিং ক্ষমতা তাকে সামনের দিকে এবং উইং উভয় দিক থেকেই হুমকিস্বরূপ করে তুলেছে। গ্যাব্রিয়েল জেসুস আরেকটি উত্তেজনাপূর্ণ খেলোয়াড়, ফোস্কা গতি এবং একটি সঠিক শট সহ। কাসেমিরো, ফার্নান্দিনহো এবং রেনাতো অগাস্টোর মিডফিল্ড ত্রয়ীও শক্তিশালী, যেমন ডেভিড লুইজ, থিয়াগো সিলভা, মার্সেলো এবং ফিলিপে লুইস নিয়ে গঠিত পিছনের চারটি।

২. গ্রুপ পর্যায়
১৪ জুন সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে ব্রাজিল। এরপর তারা কোস্টারিকা (18শে জুন), সার্বিয়া (22শে জুন) এবং সুইজারল্যান্ডের (26শে জুন) মুখোমুখি হবে। এই চার ম্যাচে অপরাজিত থাকলে শেষ ষোলতে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে তারা।

ফিফা বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিলের জন্য অনেক খেলোয়াড় দেখার জন্য রয়েছে। এখানে নজর রাখতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি খেলোয়াড় রয়েছে:

৩. নেইমার
নেইমার বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম প্রতিভাবান সুপারস্টার এবং ব্রাজিলের বিশ্বকাপ অভিযানে তিনি একজন প্রধান খেলোয়াড় হবেন বলে নিশ্চিত। তিনি একজন দ্রুত, শক্তিশালী খেলোয়াড় যিনি উভয় পায়ে গোল করতে পারেন এবং তিনি পাসিংয়েও খুব ভালো। নেইমার ব্রাজিলের জন্য প্রধান আক্রমণাত্মক হুমকি হতে পারে এবং পরবর্তী রাউন্ডে যেতে হলে তাকে ভালো পারফর্ম করতে হবে।

৪. ফিলিপে কৌতিনহো
ফিলিপ কৌতিনহো ব্রাজিলের আরেকজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় এবং তিনি একজন বহুমুখী মিডফিল্ডার যে কোনো অবস্থানে খেলতে পারেন। তিনি বাতাসে শক্তিশালী এবং দীর্ঘ দূরত্ব থেকে গোল করতে পারেন, যা তাকে ডিফেন্ডারদের জন্য একটি বিপজ্জনক প্রতিপক্ষ করে তোলে। ব্রাজিলকে বিশ্বকাপের পরবর্তী রাউন্ডে যেতে হলে কৌতিনহোকে তার সেরা হতে হবে।

৫. থিয়াগো সিলভা
থিয়াগো সিলভা ব্রাজিলের ডিফেন্সের অন্যতম প্রধান সদস্য এবং তিনি একজন শারীরিকভাবে প্রভাবশালী খেলোয়াড়। তার দুর্দান্ত শক্তি এবং সহনশীলতা রয়েছে, যার অর্থ হল যে তিনি বেশিরভাগ আক্রমণকারীদের বিরুদ্ধে নিজেকে ধরে রাখতে পারেন। সিলভাও একজন শক্তিশালী হেডার এবং তিনি গোল লাইন থেকে বল ক্লিয়ার করতে সক্ষম। ব্রাজিলকে যদি বিশ্বকাপের পরবর্তী পর্যায়ে যেতে হয়, তাহলে সিলভাকে তাদের রক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াডের প্রেডিকশন

এ বছর শিরোপা রক্ষা করতে কঠিন সময় যাচ্ছে ব্রাজিলের। এখন পর্যন্ত, মাত্র কয়েকজন খেলোয়াড় আছেন যারা আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপ স্কোয়াডের জন্য নিশ্চিত হয়েছেন এবং আরও অনেকে দলের অংশ হওয়ার গুজব রয়েছে।

ব্রাজিলের এই স্কোয়াডকে ঘিরে অনেক প্রশ্নবোধক চিহ্ন রয়েছে এবং দলে কার থাকা উচিত বা করা উচিত নয় তা নিয়ে সবার মতামত রয়েছে বলে মনে হচ্ছে। ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াডের জন্য এখানে কিছু জনপ্রিয় ভবিষ্যদ্বাণী রয়েছে।

চোট কাটিয়ে ফিরতে পারবেন নেইমার?
ফিলিপ কৌতিনহো কি বড় জনতার সামনে তার সেরাটা খেলতে পারবেন?
জোয়াও মারিও কি পর্যাপ্তভাবে মিডফিল্ডে নোঙর করতে সক্ষম হবেন?
নেইমারের অনুপস্থিতিতে যে শূন্যতা তৈরি হয়েছে তা কি পূরণ করতে পারবেন ডেভিড নেরেস?
এই সমস্ত বড় প্রশ্ন যা সম্ভবত এই বছরের বিশ্বকাপে ব্রাজিল কতটা ভাল পারফর্ম করবে তার উপর একটি বড় প্রভাব ফেলবে। আমাদের শুধু অপেক্ষা করতে হবে এবং দেখতে হবে চূড়ান্ত স্কোয়াড কেমন হয়।

ব্রাজিল বিশ্বকাপ স্কোয়াড

গোলরক্ষক

যে কোন দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পজিশন হল গোলরক্ষক। গোলরক্ষক গোল হওয়া থেকে বিরত রাখা এবং দলকে সুরক্ষিত রাখার জন্য দায়ী। ব্রাজিলের ডুডায় একজন চমৎকার গোলরক্ষক রয়েছেন, যিনি ইউরোপের বেশ কয়েকটি শীর্ষ ক্লাবের হয়ে খেলেছেন। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে ব্রাজিলকে তার গোল রক্ষা করতে সাহায্য করার জন্য তিনি গুরুত্বপূর্ণ হবেন।

অ্যালিসন এবং ক্যাসিওর মতো আরও দুজন খুব ভালো গোলরক্ষকও ব্রাজিলের। অ্যালিসন একজন তরুণ গোলরক্ষক যিনি লিভারপুল এবং রোমা সহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি শীর্ষ ক্লাবের হয়ে খেলেছেন। সে খুবই অভিজ্ঞ খেলোয়াড় এবং ব্রাজিলের ডিফেন্স শক্ত রাখতে তার মুখ্য ভূমিকা থাকবে।

ক্যাসিও একজন অভিজ্ঞ গোলরক্ষক যিনি অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ এবং করিন্থিয়ানস সহ ব্রাজিলের সবচেয়ে সফল কিছু ক্লাবের হয়ে খেলেছেন। তিনি ব্রাজিল দলের তরুণ গোলরক্ষকদের মূল্যবান অভিজ্ঞতা প্রদান করতে সক্ষম হবেন।

কাতার বিশ্বকাপ শক্তিশালী ব্রাজিল স্কোয়াড ২০২২

ডিফেন্ডার

ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানের একটি হল ডিফেন্ডার। ব্রাজিলের বিশ্বের অন্যতম সেরা রক্ষণাত্মক স্কোয়াড রয়েছে এবং তাদের প্রতিপক্ষকে উপড়ে রাখতে তাদের সমস্ত সাহায্যের প্রয়োজন।

ব্রাজিলের ডিফেন্ডাররা সাধারণত অনেক লম্বা এবং শক্তিশালী হয়। তাদের সামনে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ডিফেন্ড করতেও তারা বেশ পারদর্শী। ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডাররা তাদের কৌশল, টাইমিং এবং বল নিয়ন্ত্রণের জন্য পরিচিত। আক্রমণ করার সময়ও তারা খুব আক্রমনাত্মক হয়, যে কারণে মিডফিল্ড পার্টনারের সাথে জুটি বাঁধলে তাদের পরাজিত করা কঠিন হয়।

বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিল তার ডিফেন্ডারদের উপর অনেক বেশি নির্ভর করবে। তারা যদি সুস্থ থাকতে পারে এবং প্রতিপক্ষকে গোল করা থেকে বিরত রাখতে পারে, তাহলে ব্রাজিলের টুর্নামেন্ট জেতার ভালো সুযোগ রয়েছে।

আরো দেখুন …

মিডফিল্ডার

ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের অন্যতম প্রধান শক্তি হল এর মাঝমাঠ। ব্রাজিলের সাফল্যের জন্য মিডফিল্ডাররা গুরুত্বপূর্ণ এবং গ্রুপ পর্ব থেকে এগিয়ে যেতে হলে তাদের খেলায় থাকতে হবে।

ব্রাজিলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ মিডফিল্ডারদের একজন ফ্রেড। ফ্রেড একজন কঠোর পরিশ্রমী খেলোয়াড় যিনি প্রতিরক্ষার পিছনে রান করার এবং তার সতীর্থদের জন্য সুযোগ তৈরি করার ক্ষমতার জন্য পরিচিত। তিনি বল পাস করতেও পারদর্শী, যা ব্রাজিলের আক্রমণাত্মক খেলায় গুরুত্বপূর্ণ হবে।

ব্রাজিলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ আরেক মিডফিল্ডার ফার্নান্দিনহো। ফার্নান্দিনহো একজন শারীরিক খেলোয়াড় যিনি খেলা ভেঙে দিতে পারেন এবং বল ভালোভাবে ক্লিয়ার করতে পারেন। তার ভাল দৃষ্টি এবং পাস করার দক্ষতাও রয়েছে, যা তাকে তার সতীর্থদের জন্য সুযোগ তৈরি করতে সহায়তা করবে।

ব্রাজিলের অন্যান্য মিডফিল্ডাররাও সক্ষম খেলোয়াড়, তবে ফ্রেড এবং ফার্নান্দিনহোর মতো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে খেলার অভিজ্ঞতা তাদের নেই। তাদের গ্রুপের আরও অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের দ্বারা অভিভূত না হওয়ার জন্য তাদের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

ফরোয়ার্ড

ফিফা বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিলের ফরোয়ার্ডরা মাঠের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু খেলোয়াড়। তারা দলের জন্য সুযোগ তৈরি এবং গোল করার জন্য দায়ী থাকবে। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডরা দ্রুত এবং শক্তিশালী রানার্স হতে থাকে। এই গুণগুলি তাদের খুব বিপজ্জনক করে তোলে যখন তারা লক্ষ্যের কাছাকাছি যায়, কারণ তারা খুব সহজেই কাছাকাছি থেকে গোল করতে পারে।

ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডদেরও চমৎকার বল নিয়ন্ত্রণ। তারা আঁটসাঁট জায়গায় বল নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম, যা তাদের সতীর্থদের জন্য সুযোগ তৈরি করতে দেয়। ফিফা বিশ্বকাপের সময় ব্রাজিলের ফরোয়ার্ডরা মাঠের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। তাদের গতি, শক্তি এবং বল নিয়ন্ত্রণ ব্রাজিলকে গেম জিততে সাহায্য করবে।

কাতার বিশ্বকাপ সম্পর্কে সব ধরনের নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের পেজটি নিয়মিত আপডেট করুন। কাতার বিশ্বকাপ সম্পর্কে আপনার কোন মতামত বা পরামর্শ থাকলে আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন, ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *